দেশের সংবাদ

আকিফার মৃত্যু: গঞ্জেরাজ পরিবহনের চালকের গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি

কুষ্টিয়ায় বাসের ধাক্কায় মায়ের কোল থেকে রাস্তায় ছিটকে পড়ে আকিফা খাতুন নিহতের ঘটনায় ফয়সাল গঞ্জেরাজ বাসের মালিক ও চালকের জামিন বাতিল করে দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে এটি হত্যা মামলা হিসেবে নেওয়ার আবেদন মঞ্জুর করেছেন। মঙ্গলবার (১১ সেপ্টেম্বর) কুষ্টিয়া জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম এস এম মোরসেদ তাদের জামিন বাতিল করে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।

পুলিশের উপ-পরিদরর্শক (এসআই) আজাহার আলী এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও কুষ্টিয়া মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুমন কাদেরী আদালতে ৩০২ ধারা সংযোজন করে মামলাটিকে হত্যা মামলা হিসেবে নেওয়ার আবেদন করেন। জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম এস এম মোরসেদ মামলাটি হত্যা মামলা হিসেবে নেওয়ার আবেদন মঞ্জুর করেন।

এর আগে সোমবার সকালে (১০ সেপ্টেম্বর) গঞ্জেরাজ পরিবহনের মালিক জয়নাল আবেদীনকে আদালতে হাজির করা হয়। একইসঙ্গে বাসের চালক মহিদ মিয়া ওরফে খোকনও ওই আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। পরে সোমবার দুপুরে দু’জনের আইনজীবী আদালতের কাছে তাদের জামিন আবেদন করেন। আদালত তাদের জামিন মঞ্জুর করেন।

উল্লেখ্য, গত ২৮ অগাস্ট দুপুরে কুষ্টিয়া শহরের চৌড়হাস মোড় এলাকায় আকিফাকে কোলে নিয়ে রাস্তা পার হচ্ছিলে মা রিনা বেগম। এসময় পেছন থেকে ফয়সাল গঞ্জেরাজ পরিবহনের একটি বাসের ধাক্কায় মায়ের কোল থেকে ছিটকে পড়ে আহত হয় আকিফা। এর দুইদিন পর ৩০ অগাস্ট ভোর ৫টার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (ঢামেক) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। আকিফা ও তার মাকে ধাক্কার দেওয়ার ঘটনাটি স্থানীয় একটি জুয়েলারির দোকানের সিসি ক্যামেরায় ধরা পড়ে। ভিডিওতে দেখা যায়, রাজশাহী থেকে ফরিদপুরের উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা গঞ্জেরাজ পরিবহনের বাসটি ঘটনাস্থলে দাঁড়িয়ে ছিল। এই সময় মা রিনা বেগম তার সন্তানকে কোলে নিয়ে ওই বাসের সামনে দিয়ে যাচ্ছিলেন। হঠাৎ কোনও হর্ন ছাড়াই চালক বাসটি চালিয়ে মা-মেয়েকে ধাক্কা দিয়ে চলে যায়। পরে স্থানীয়রা আহত মা ও মেয়েকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। মাথায় আঘাত পাওয়ায় শিশুটির অবস্থার অবনতি হলে তাকে ওইদিন সন্ধ্যায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় স্থানান্তর করা হয়। ৩০ আগস্ট ভোর ৫টার দিকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে (ঢামেক) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় আকিফার বাবা খুদ্র ব্যবসায়ী হারুন উর রশিদ ফয়সাল গঞ্জেরাজ পরিবহনের চালক, তার সহকারী এবং বাস মালিককে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন। এরপর গত রবিবার (৯সেপ্টেম্বর) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে ফরিদপুরের ঝিলটুলী এলাকার নিজ বাড়ি থেকে ফয়সাল গঞ্জেরাজ পরিবহনের মালিক জয়নাল আবেদীনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। পরে তাকে কুষ্টিয়া মডেল থানায় সোপর্দ করে। সোমবার সকালে গ্রেপ্তারকৃত জয়নালকে আদালতে পাঠানো হয়। একইসঙ্গে বাসের চালক খোকন ওই আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। পরে সোমবার (১০সেপ্টেম্বর) দুপুরে দুজনের আইনজীবী আদালতের কাছে তাদের জামিন আবেদন করেন। আদালত তাদের জামিন মঞ্জুর করেন।

নিহত আকিফা খাতুন কুষ্টিয়া শহরের চৌড়হাস এলাকার খুদ্র ব্যবসায়ী হারুন উর রশিদের মেয়ে।

Back to top button