বাংলাদেশে চালু হচ্ছে নম্বর পরিবর্তন না করে অন্য অপারেটরের সেবা নেওয়ার সুযোগ

Image result for মোবাইল সিম

বাংলাদেশে মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীদের একটা বড় অংশ হচ্ছে কিশোর-কিশোরী।

বাংলাদেশ আজ থেকে দেশে চালু হচ্ছে নম্বর পরিবর্তন না করে অন্য অপারেটরের সেবা নেওয়ার সুযোগ- মোবাইল নাম্বার পোর্টেবেলিটি বা এমএনপি সেবার কার্যক্রম।

বর্তমানে বিশ্বের প্রায় ৭০টির মতো দেশে এমএনপি সেবা চালু রয়েছে।

বাংলাদেশে এমএনপি চালু হলে একজন মোবাইল ফোন গ্রাহক কিভাবে লাভবান হবেন?

বিটিআরসির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জহুরুল হক বলছিলেন, “মূল উদ্দেশ্য হল একটা মোবাইল সিম কিনে, যাতে করে প্রত্যেকটা সিম কিনতে না হয়। যেমন গ্রামীণের সিম দিয়ে রবি তে কথা বলতে পারবে।”

কিন্তু এখনো মোবাইল গ্রাহকরা বিভিন্ন অপারেটরের সিমে ফোন করতে পারেন, সেক্ষেত্রে পার্থক্যটা কী হবে?

চালু হচ্ছে নম্বর পরিবর্তন না করে অন্য অপারেটরের সেবা নেওয়ার সুযোগ।

মি. হক বলছিলেন, এখন কথা বলতে গেলে কল রেটের তারতম্য হয় অর্থাৎ বাংলালিংক থেকে গ্রামীণে কথা বলতে গেলে হয়ত কলরেট বেশি হতে পারে কিন্তু এক্ষেত্রে কলরেট একই রকম থাকবে।

“মোবাইল নাম্বার পোর্টেবেলিটি বা এমএনপি সেবা চালু হলে একজন গ্রাহকের লাভবানের জায়গা হল যদি তার একটা গ্রামীণের নম্বর আছে সে কথা বলতে চায় টেলিটকে, সে সরাসরি টেলিটকে কথা বলতে পারবে। এই সুবিধা সে পাবে” বলছিলেন বিটিআরসির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান।

তবে এক্ষেত্রে কিছু চ্যালেঞ্জ রয়েছে।

তিনি বলছিলেন, এক্ষেত্রে ‘অফনেট-অননেট রেট’ ঠিক করতে হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।’অফনেট-অননেট রেট’ যদি ঠিক করা যায় তাহলে এমএনপি করলে খুব লাভ হবে।

এখন সব কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষার মধ্যে আছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

টেলিটক এবং বিটিসিএল এখনো পর্যন্ত প্রস্তুত হয়নি বলে তিনি জানান, বাকি অপারেটররা প্রস্তুত আছে।

তবে একই নম্বর দিয়ে অন্য অপারেটরে কথা বলার এই সেবা চালু করতে বাড়তি কোন অর্থ খরচ করতে হবে না।

Spread the love

Related posts