ব্রেকিং নিউজ

৮ দফা দাবির বিইউপি শিক্ষার্থীদের

নিজস্ব প্রতিবেদক :রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় সু-প্রভাত বাসের চাপায় বিইউপির শিক্ষার্থী আবরার আহমেদ চৌধুরী নিহতের ঘটনায় প্রথমে ১২ দফা ও পরে ৮ দফা দাবি জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। একই সঙ্গে দ্রুত সময়ের মধ্যে এসব দাবি কার্যকর করার দাবি জানানো হয়েছে।

দাবিগুলো হচ্ছে-
১. পরিবহন সেক্টরকে রাজনৈতিক প্রভাবমুক্ত করতে হবে এবং প্রতি মাসে বাসচালকের লাইসেন্সসহ সকল প্রয়োজনীয় কাগজপত্র চেক করতে হবে।
২. আটক চালক ও সম্পৃক্ত সকলকে দ্রুত সময়ের মধ্যে সর্বোচ্চ শাস্তির আওতায় আনতে হবে।
৩. আজ থেকে ফিটনেস বিহীন বাস ও লাইসেন্স বিহীন চালককে দ্রুত সময়ে অপসারণ করতে হবে।
৪. ঝুঁকিপূর্ণ ও প্রয়োজনীয় সকল স্থানে আন্ডারপাস, স্পিড ব্রেকার এবং ফুট ওভারব্রিজ নির্মাণ করতে হবে।
৫. চলমান আইনের পরিবর্তন করে সড়ক হত্যার সাথে জড়িত সকলকে সর্বোচ্চ শাস্তির আওতায় আনতে হবে।
৬. দায়িত্ব অবহেলাকারী প্রশাসন ও ট্রাফিক পুলিশকে স্থায়ী অপসারণ করে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।
৭. প্রতিযোগিতামূলক গাড়ি চলাচল বন্ধ করে নির্দিষ্ট স্থানে বাসস্টপ এবং যাত্রীছাউনি করার জন্য যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে এবং
৮. ছাত্রদের হাফ পাস (অর্ধেক ভাড়া) অথবা আলাদা বাস সার্ভিস চালু করতে হবে।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের পক্ষে বিইউপি শিক্ষার্থী শামীম আল হাসান এসব দাবি ঘোষণা করেন। দাবি ঘোষণা পাশাপাশি এসব দফা দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া হবে বলেও ঘোষণা দেয়া হয়। শিক্ষার্থীরা বলেন, ‘আমরা কোনো আশ্বাস শুনতে চাই না। আমাদের দাবি বাস্তবায়ন চাই।’

এর আগে ১২ দফা দাবি তুলে ধরেন তারা। দাবি উত্থাপনের পর আগামী তিনমাসের মধ্যে বসুন্ধরা আবাসিক/যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে নিহত আবরারের নামে ফুটওভার ব্রিজ তৈরি করার আশ্বাস দেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আতিকুল ইসলাম।

উল্লেখ্য, আজ মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) সকাল সাড়ে ৭টার দিকে রাজধানীর বসুন্ধরা গেট এলাকায় সু-প্রভাত বাসের চাপায় বিইউপির শিক্ষার্থী আবরার আহমেদ চৌধুরী নিহত হন। তিনি ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) আরিফের বড় ছেলে। আবরার মালিবাগে নিজস্ব বাসায় থাকতেন।

Spread the love

Related posts