অপরাধ

সন্ধ্যার পরের ফুটওভার ব্রিজে ছিনতাইকারী ও হিজড়ার উপদ্রব

নিজস্ব প্রতিবেদক: সন্ধ্যা হলেই ফুটওভার ব্রিজ ঘিরে কখনও ছিনতাইকারী, কখনও হিজড়াদের উপদ্রব। ফলে পারত পক্ষে সন্ধ্যার পর ফুটওভার ব্রিজ এড়িয়ে চলেন পথচারীরা। জীবনের ঝুঁকি নিয়েই রাস্তা পার হন সবাই।

কোনো স্থানে ফুটওভার ব্রিজ থাকলে তা ব্যবহার না করে কেউ জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পার হওয়ার চেষ্টা করলে তাকে আটক করারও নির্দেশনা দিয়েছেন ডিএমপি কমিশনার। পাশাপাশি পথচারীদের ফুটওভার ব্রিজ ও জেব্রা ক্রসিং ব্যবহারে উৎসাহ দেয়া হচ্ছে।

তবে ট্রাফিক পুলিশ সদস্যদের সন্দেহভাজন যানবাহন আটক ও ট্রাফিক আইন লঙ্ঘন কিংবা যানবাহনের বৈধ কাগজপত্র না থাকায় মামলা দেয়ার প্রবণতা দৃশ্যমান। সেই সঙ্গে ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার না করে ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পারাপারেও পথচারীদের বাধা দিতে দেখা যায় পুলিশ সদস্যদের।

ফুট ওভার ব্রিজের নিকটে ওজন মেশিন নিয়ে বসা একজনের সাথে কথা বললে জানান, সকালে ও বিকেল ৪টার পর এ ফুটওভার ব্রিজে লোকজনের যাতায়াত কিছুটা বাড়ে। তবে সন্ধ্যার পর একেবারেই কমে যায়, থাকে না বললেই চলে।

আরেকজন জানান, আগের তুলনায় ছিনতাই কমলেও এ ব্রিজের ওপর এখনও দুর্বৃত্তরা ঘোরাফেরা করে।’

ছিনতাইকারীদের কারণে যদি ভয় বা জীবনের ঝুঁকি থাকে তাহলে পুলিশ কী ব্যবস্থা নিচ্ছে- প্রশ্ন রেখে পাশে দাঁড়িয়ে থাকা আরেকজন জানান, আমি তো নিয়মিত সকালে এ ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার করি। রাস্তার ওপারে গিয়ে নিউ মার্কেটের বাস ধরি। নিউ মার্কেটে আমার ব্যবসা থাকায় নিয়মিত এ পথে যাতায়াত করতে হয়। কিন্তু রাত ৮টার পর এটি ব্যবহার করি না। কারণ একটাই, হয় ছিনতাইকারী, নয় তো হিজড়াদের উৎপাত।’

এ ব্যাপারে দারুস সালাম থানার ওসি সেলিমুজ্জামান মিয়া বলেন, আগে ছিনতাই হতো, এখন হয় না। লাইটিংয়ের কারণে দূর থেকেও উপরের সবাইকে দেখা যায়। এরপরও যদি কেউ হয়রানি বা ছিনতাইয়ের শিকার হন তাহলে অভিযোগ করুন, আমরা আইনানুগ পদক্ষেপ গ্রহণ করব।

Back to top button
Close
Close