জাতীয়

বাড়তি আমদানিতে পচছে পেঁয়াজ

চট্টগ্রাম সংবাদদাতা: চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জে দিন দিন পেঁয়াজ ব্যবসায়ীদের লোকসানের বোঝা ভারি হচ্ছে। পানির দরে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ। কখনো কেজি ৫ থেকে ১০ টাকা আবার কখনো বস্তাভর্তি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ১০ থেকে ২০ টাকায়। বিক্রি করতে না পেরে ফেলেও দিচ্ছেন অনেক ব্যবসায়ী। এতে কোটি কোটি টাকা ক্ষতির মুখে পড়ে দিশেহারা আমদানিকারকরা।

খাতুনগঞ্জের প্রতিটা আড়তে শত শত বস্তা পচা পেঁয়াজ। প্রথমে গ্যাজ কিংবা চারা গজিয়ে, তারপর নষ্ট হচ্ছে পানি ঝরে। আর এগুলো বিক্রি হচ্ছে কেজি ৫ থেকে ১০ টাকা। আবার কোন কোন আড়তে পুরো বস্তারই দাম মাত্র ১০ টাকা। লোকসানের বোঝা বাড়তে থাকায় চরম ক্ষতির মুখে ব্যবসায়ীরা।
ব্যবসায়ী নেতারা বলছেন, রপ্তানিকারক দেশে জাহাজ ভর্তির সময় কন্টেইনার সংক্রান্ত জটিলতায় পচছে পেয়াজ। পাশাপাশি মৌসুমী ব্যবসায়ীদের অতিরিক্ত আমদানির কারণে পচে যাচ্ছে পেঁয়াজ।

হামিদুল্লাহ মিয়া মার্কেট ব্যবসায়ী আড়ৎদার সমিতির সাধারণ সম্পাদক মিন্টু বলেন, যেহেতু গতবছর পেঁয়াজের অনেক বেশি দাম উঠেছিল। তাই মৌসুমী ব্যবসায়ীরা ভাবছেন এবারও দাম অনেক হবে। এজন্য বেশি পরিমাণে আমদানি করায় দাম পড়ে গেছে। আর আমদানিকারক শাহ আলম বলেন, কন্টেইনারে কন্টেইনারে পেঁয়াজ পচার কারণে ক্ষতির মুখে পড়ে আগ্রহ হারাচ্ছেন আমদানিকারকরা। চলতি বছরের সেপ্টেম্বরে ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করায় বিশ্বের ১১টি দেশ থেকে আমদানির অনুমতিপত্র খোলেন খাতুনগঞ্জসহ দেশের শত শত আমদানিকারকরা।

Back to top button