আন্তর্জাতিক

বিদেশি পোশাক ও চালচলনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা উত্তর কোরিয়ায়

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: উত্তর কোরিয়ায় এক আইনে বিদেশি পোশাকপরিচ্ছদসহ কাউকে পাওয়া গেলে কঠোর শাস্তির বিধান রাখা হয়েছে। সাম্প্রতিক এই আইনকে দেশটির সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উনের বিনা হাতিয়ারের যুদ্ধ হিসেবে বর্ণনা করেছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

শুধু নাটক-সিনেমা বা পোশাকই নয়, বিদেশি গালাগাল ব্যবহার করতে দেখলেও তার ওপর শাস্তির খড়গ নেমে আসছে। কারো কাছে দক্ষিণ কোরিয়া, যুক্তরাষ্ট্র বা জাপানের তৈরি ভিডিওর সংগ্রহ বেশি পরিমাণে ধরা পড়লে তার মৃত্যুদ-ের বিধান থাকছে। আর, যারা এসব দেখেছে বলে প্রমাণ মিলবে, তাদের দেওয়া হবে ১৫ বছরের কারাদ-।

নতুন আইনে বিদেশি নাটক-সিনেমা বা অন্যান্য ভিডিও দেখা, পোশাক-পরিচ্ছদ বা চালচলনকে ‘প্রতিক্রিয়াশীল চিন্তা’ হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে।

শুধু নাটক-সিনেমা পর্যন্ত ব্যাপারটি সীমাবদ্ধ থাকছে না। কয়েকদিন আগে রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যমে চিঠি লিখে কিম জং উন দেশটির যুব লীগের প্রতি অদ্ভূত আহ্বান জানিয়েছে। বলেছে, তরুণদের মধ্যে ‘অনৈতিক, ব্যক্তিকেন্দ্রিক ও সমাজতন্ত্রবিরোধী আচরণ’ দেখলে যেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

বিবিসির খবরে বলা হয়, বিদেশি কথাবার্তা, হেয়ারস্টাইল ও পোশাক-পরিচ্ছদ চিরতরে নির্মূল করতে চাইছে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। এগুলোকে সে ‘মারাত্মক বিষ’ হিসেবে আখ্যায়িত করছেন।

সাংস্কৃতিক কট্টরপন্থা উত্তর কোরিয়ায় নতুন নয়। ২০০২ সালে একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে অভিযান চালিয়ে নাটক-সিনেমার ২০ হাজার সিডি জব্দ করা হয়।

Back to top button