আন্তর্জাতিক

গোলান মালভূমি সিরিয়ার ছিল এবং থাকবে: ওয়াশিংটনকে দামেস্ক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ‌সিরিয়ার গোলান মালভূমির ওপর ইহুদিবাদী ইসরাইলের কথিত ‘সার্বভৌম অধিকার’ নিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন যে বক্তব্য দিয়েছেন তা তীব্র ভাষায় প্রত্যাখ্যান করেছে দামেস্ক। সিরিয়া বলেছে, ইসরাইল-অধিকৃত গোলান মালভূমি সিরিয়ার অবিচ্ছেদ্য অংশ ছিল এবং ভবিষ্যতেও থাকবে।

সিরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বুধবার এক বিবৃতিতে বলেছে, “অধিকৃত গোলান মালভূমি নিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য পুরোপুরি প্রত্যাখ্যান করছে আরব প্রজাতন্ত্র সিরিয়া। ইসরাইলি আগ্রাসন ও দখলদারিত্বের প্রতি আমেরিকার নিরবচ্ছিন্ন সমর্থনের ধারাবাহিকতায় ব্লিঙ্কেন ওই বক্তব্য দিয়েছেন যা নিন্দনীয়।”

সম্প্রতি মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদের পররাষ্ট্র বিষয়ক কমিটির এক শুনানিতে ব্লিঙ্কেনকে প্রশ্ন করা হয়, প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন গোলান মালভূমির ওপর ইসরাইলের ‘সার্বভৌম অধিকার’কে স্বীকৃতি দেয় কিনা। উত্তরে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, “বৈধতার প্রশ্ন বাদ দিলে গোলান মালভূমির ওপর বর্তমানে ইসরাইলের নিয়ন্ত্রণ রয়েছে।যতদিন পর্যন্ত সিরিয়া সীমান্তের ওপার থেকে ইসরাইলের জন্য হুমকি বন্ধ না হচ্ছে ততদিন পর্যন্ত পরিস্থিতি এখন যেমন আছে তেমনই থাকবে।আপাতত হুমকি বন্ধ হওয়ার কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না।”

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ২০১৯ সালে সিরিয়ার কাছ থেকে দখলীকৃত গোলান মালভূমির ওপর ইহুদিবাদী ইসরাইলের ‘সার্বভৌমত্বকে’ স্বীকৃতি দেন; যদিও জাতিসংঘ বা আন্তর্জাতিক সমাজ ইসরাইলের এই দখলদারিত্বকে এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে মেনে নেয়নি।

ব্লিঙ্কেনের বক্তব্যের জবাবে সিরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আরো বলেছে, ইহুদিবাদী ইসরাইল মধ্যপ্রাচ্যসহ গোটা বিশ্বের জন্য বড় ধরনের হুমকি সৃষ্টি করছে।#

সূত্র: পার্সটুডে

Back to top button