আন্তর্জাতিক

বিধ্বস্ত রুশ সামরিক বিমানের ৯২ আরোহীরই মৃত্যুর আশঙ্কা


কৃষ্ণ সাগরে বিধ্বস্ত রুশ সামরিক বিমানটিতে থাকা ৯২ আরোহীর সবার মৃত্যুর আশঙ্কা করা হচ্ছে। কয়েক ঘণ্টা আগে নিখোঁজ হওয়া বিমানটি কৃষ্ণ সাগরে বিধ্বস্ত হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে রুশ কর্তৃপক্ষ। বিধ্বস্ত হওয়া টিইউ-১৫৪ সামরিক বিমানটিতে ৯২ জন আরোহী ছিলেন। তাদের মধ্যে ৮৪ জন যাত্রী। বাকী ৮ জন বিমান কর্মী। এখনও জীবিত কাউকে উদ্ধার করা যায়নি। বিমানে থাকা সব আরোহীর মৃত্যু হয়েছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

বিমানটির ধ্বংসাবশেষ পাওয়া গেছে এরইমধ্যে। উদ্ধার করা হয়েছে একজনের মরদেহ। রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে ইউরো নিউজ জানিয়েছে, চলমান উদ্ধার অভিযানে এখনও কোনও জীবিতের সন্ধান পাওয়া যায়নি।

বিমান বিধ্বস্তের ধরন এবং সেখানকার পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করে রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন আরটি আশঙ্কা প্রকাশ করেছে, ৯২ আরোহীর কেউই আর বেঁচে নেই। মার্কিন সংবাদমাধ্যম এনবিসি নিউজও একই ধরনের আশঙ্কা প্রকাশ করেছে। এদিকে ইন্ডিয়া টুডের খবরে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে উদ্ধৃত করে বরা হয়েছে, তিনি নিবামে থাকা আরোহীদের স্বজনদের সমবেদনা জানিয়েছেন।

মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মেজর জেনারেল ইগোর কোনাশেনকভ জানিয়েছেন, ধ্বংসাবশেষ উদ্ধারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে। তিনি জানান, চারটি জাহাজ, পাঁচটি হেলিকপ্টার এবং একটি ড্রোন ওই এলাকায় কাজ করে যাচ্ছে।

রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে দেওয়া বিবৃতিতে মুখপাত্র কোনাশেনকভ আরও জানান, ‘সোচি শহরে কৃষ্ণ সাগরবর্তী উপকূলের দেড় কিলোমিটার দূরে ৭০ মিটার গভীরে রুশ প্রতিরক্ষা দফতরের টু-১৫৪ বিমানটির ধ্বংসাবশেষ পাওয়া যায়।’

সূত্রের বরাত দিয়ে রুশ সংবাদমাধ্যম স্পুটনিক জানিয়েছে, সোচির ক্রাসনোদার ক্রাই থেকে স্থানীয় সময় ভোর ৫টা ২০ মিনিটে উড্ডয়নের ২০ মিনিট পরই বিমানটির সঙ্গে নিয়ন্ত্রণ কক্ষের যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। তখন বিমানটি কৃষ্ণ সাগরের ওপর দিয়ে উড়ে যাচ্ছিল।
সামরিক বিমানটি নিখোঁজ হওয়ার পর থেকে এ বিষয়ে তল্লাশি অভিযান তদারকি করছেন রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শইগু। ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ জানিয়েছেন, রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে এ বিষয়ে অবগত করা হয়েছে। তাকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সকল আপডেট জানানো হচ্ছে।
তল্লাশি অভিযানে কয়েকটি কেএ-৩২ ও একটি মিগ-৮ হেলিকপ্টার এবং বেশ কয়েকটি যুদ্ধ জাহাজ অংশ নেয় বলে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্রের বরাত দিয়ে ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, উদ্ধারকারীরা সোচির কৃষ্ণ সাগরের ৭০ মিটার গভীরে বিমানটির ধ্বংসাবশেষ খুঁজে পেয়েছেন। তবে আরোহীদের হতাহতের বিষয়ে এখনও নিশ্চিত করা হয়নি।

পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে রুশ সামরিক বাহিনীর একটি কমিশনও সোচিতে গেছে। এর আগে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের সূত্রে সে দেশের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম আরটি (রাশিয়ান টেলিভিশন) জানিয়েছে, টিইউ-১৫৪ বিমানটির বেশিরভাগ যাত্রীই ছিলেন সামরিক সংগীত দল আলেক্সান্দ্রভ এনসেম্বল-এর সদস্য। ওই সংগীত দলের ৯০ জন সদস্য দু’টি রুশ সামরিক বিমানে করে সিরিয়ার লাতাকিয়ায় যাওয়ার কথা ছিল। এছাড়াও বিমানে ছিলেন কয়েকজন সামরিক কর্মকর্তা এবং নয়জন সাংবাদিক।
সূত্র: আরটি, স্পুটনিক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close